মূলত চু,রির টাকা ফেরৎ না দিতেই ফাহিকে পৃথিবী থেকে সরান তার ব্যক্তিগত সহকারী টাইরিস ডেভন হসপিল।
স্থানীয় সময় শুক্রবার ভোরে তাকে গ্রেফ’তার করেছে নিউইয়র্ক পুলিশ। তার বি’রুদ্ধে ফাহিম হ’ত্যা’কাণ্ডের অ’ভিযোগ আনা হচ্ছে। তার ব্যক্তিগত সহকারী টাইরিস ডেভন হসপিল ফাহিমের মোটা অঙ্কের ড’লার চু’রি করেছিলেন।

বিষয়টি ফাহিম জেনে যাওয়া কে কেন্দ্র করে তাকে হ’ত্যার পরিকল্পনা করেন তার ব্যক্তিগত সহকারী। গোয়েন্দারা ধারণা করছেন,সেই পরিকল্পনা আনুযায়ী ফিহিমকে ইলে’ট্রিক করাত দিয়ে হ’ত্যা করেন ডেভন । ফাহিম সালেহর বোন যখন ওই অ্যাপার্টমেন্টে ঢুকছিলেন, হাসফিল তখন লা’শ টুকরো করছিলেন। নিউইয়র্ক টাইমস।

যুক্তরাষ্ট্রে স্থানীয় সময় মঙ্গলবার বিকালে ম্যানহাটানের লোয়্যার ইস্ট সাইডে ৩৩ বছর বয়সী ফাহিমের অ্যাপার্টমেন্ট থেকে তার খণ্ড-বিখণ্ড লা’শ উদ্ধার করে পুলিশ।



পুরো একদিন ফাহিমের কোনো সাড়া না পেয়ে মঙ্গলবার ওই অ্যা’পার্টমেন্টে গিয়েছিলেন তার বোন। ভেতরে ঢুকে তিনি ভয়ং’কর এক দৃশ্য দেখতে পান। ফাহিমের মা’থা ও শরী’রের বি’ভিন্ন অংশ ছিল কেটে টুকরো করা।



তদন্তকারীদের ধারণা, যেদিন ফাহিমের লা’শ পাওয়া যায়, তার আগের দিন তাকে হ’ত্যা করেন হস’পিল। পরদিন তিনি ওই অ্যাপার্টমেন্টে ফিরে গিয়েছিলেন লা’শ টুক’রো টুকরো করে ব্যাগে ভরে সরিয়ে ফেলার পাশাপাশি হত্যা’কাণ্ডের চিহ্ন মুছে ফেলার জন্য।

ফাহিমের মৃত্যুতে প্রবাশী বাংলাদেশীরে মর্মহত। তারা এই জ’ঘন্যতম অপরাদের দিষ্টা’ন্তমুলক শা’স্তী দাবী করেছেন
Comments

News Page Below Ad