ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. জেবা ইসলাম সেরাজের নেতৃত্বে একদল গবেষক করোনা ভাইরাস শনাক্তের নতুন পদ্ধতি আবিষ্কার করেছেন। এই পদ্ধতিতে মাত্র ৪০ মিনিটেই করোনা ভাইরাস শনাক্ত করা যাবে এবং খরচ পড়বে মাত্র ছয়শত টাকা।
নিজেদের এই কিটে পরীক্ষা সম্পর্কে অধ্যাপক ড. জেবা ইসলাম সেরাজ বলেন, এই কিটটা বিগত ৪-৫ বছর ধরে এভেইলেভল ছিলো। এই কিট দিয়ে ডিএনএ এবং আরএনএ শনাক্ত করা যায়। কানাডা সহ কয়েকটি দেশ এ পদ্ধতিতে করোনা শনাক্ত করা হয়। আমরাও পরীক্ষা করে দেখেছি। ৪০ মিনিটের কালার রিঅ্যাকশানের মাধ্যমে করোনা পজেটিভ কি নেগেটিভ তা জানা যায়। নেগেটিভ হলে এটি গোলাপী রং ধারণ করে আর পজেটিভ হলে হলুদ রং ধারণ করে।
তিনি আরও জানান, সনাক্তকরণের জন্য তারা র‌্যাপিড কলোরোমেট্রিক টেস্টের প্রক্রিয়া অনুসরণ করেছেন। যেটি আরটি-ল্যাম্প টেস্ট কিট নামে প্রচলিত। আর সনাক্তকরণ প্রক্রিয়াটি একটি সাধারণ ইনকিউবেটর বা তাপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্র ব্যবহার করে মাত্র ৩০ থেকে ৪০ মিনিটে সম্পন্ন করা হয়েছে।
ঢাবির এক বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ইতোমধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগ এবং ‘বায়োটেক কনসার্ন যৌথভাবে বিএসএমএমইউ তে এই পরীক্ষাটির কার্যকারিতা পরীক্ষার জন্য আবেদন করেছে। পরবর্তীতে ড্রাগ এডমিনিস্ট্রেশন বোর্ডে অনুমতির জন্য আবেদন করা হবে। তাছাড়া, এই কিটটি আমেরিকান মলিকিউলার বায়োলজি রিএজেন্ট এবং কিট উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান নিউ ইংল্যান্ড বায়োল্যাবস দ্বারা উৎপাদিত এবং বাংলাদেশে ‘বায়োটেক কনসার্ন’ এর একমাত্র পরিবেশক।

News Page Below Ad