গণ’মা’নু’ষের অ’ধি’কার আ’দা’য়ের কথা বলে নতুন রা’জনৈ’তি’ক দলের নামে সা’মা’জিক যো’গা’যোগ মাধ্যমে দেশবাসীর কাছে গ’ণ’চাঁ’দা চেয়েছে নুর-রাশেদরা। বিষয়টি রা’জ’নীতিতে এক সময় ই’তি’বাচক হিসেবে দেখা হলেও এখন তা বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই দলের নেতারা ব্য’ক্তি’গত সুবিধায় কাজে লাগায় বলে দা’বি করেছেন শিক্ষক ও রাজনীতিকরা।
তারা বলছেন, ব্যাংক হিসাব ও মোবাইল ব্যাংকিং নম্বরগুলো ব্যক্তিগত নামে হওয়ায় তা আরো স’ন্দে’হের সৃষ্টি করেছে।

শুক্রবার সা’মা’জিক যো’গা’যো’গ মাধ্যমে ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর এবং ছাত্র অধিকার পরিষদের দুই নেতা রাশেদ খান ও ফারুক হোসেনের ফেসবুক এ’কা’উন্ট থেকে গণ’চাঁ’দা’ চেয়ে একটি স্ট্যাটাস ও লিফলেট প্রকাশ করা হয়।

সেখানে তারা তাদের নতুন রা’জ’নৈতিক দল পরিচালনার জন্য সাধারণ মানুষের কাছে সাহায্য চেয়ে ৮টি মোবাইল ব্যাংকিং নম্বর ও একটি ব্যাক্তি নামে ব্যাংক একাউন্ট নম্বর প্রকাশ করেন।

সাধারণ শিক্ষার্থীরা বলছেন, এটি নুর-রাশেদদের পকেট ভা’রী করার কৌ’শ’ল ছাড়া কিছুই না।

একজন শিক্ষার্থী বলেন, সাধারণ জনগণের কাছ থেকে টাকা নেয়া অবশ্যই কোনো উদ্দেশ্য তার আছে।

আরেকজন বলেন, এভাবে তিনি জনগণের কাছ থেকে টাকা নিতে পারেন না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও রাজনীতিকরা বলছেন, অনেক সংগঠনই চাঁ’দা তুলে দল প’রি’চালনা করে থাকে। তবে সেখানে আ’র্থি’ক সব কা’র্য’ক্রম চলে সংগঠনের নিজস্ব একাউন্টে।

সিপিবি সম্পাদক বলেন, একটা সংগঠনের আর্থিক স্ব’চ্ছতা থাকতে হলে অবশ্যই ব্যাংকের নামে সং’গ’ঠিত হতে হবে। এটা কোনো মানুষের নামে নয়, সং’গ’ঠনের নামে হবে।

সাধারণ মানুষকেও এসব বিষয়ে আ’বে’গপ্র’বণ না হয়ে বিচার বিশ্লেষণ করার তাগিদ দিয়েছেন তারা।

News Page Below Ad