রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী ই/উ/নিয়নের খো/র্দ্দ/বাউসা গ্রামে বাগান মালিকদের ক্ষ/তিপূ/র/ণের অ/র্থ ব/রা/দ্দ দেওয়া হয়েছে। পরিবশে বন ও জ/ল/বা/য়ু পরি/ব/র্তন ম/ন্ত্র/ণাল/য়রে উপসচিব দীপক কুমার চ/ক্র/বর্তী স্বা/ক্ষ/রিত একটি পত্রে বন অ/ধি/দপ্তর থেকে পাঁচজন বাগান মালিক পাখির বাসার জন্য মোট ৩ লাখ ১৩ হাজার টাকা ই/জা/রা বা/ব/দ অর্থ ব/রাদ্দ/ দেওয়া হয়েছে। কয়েক বছর থেকে শাবুক/খো/ল অতিথি পাখি এই বাগানে আ/সা/য় আম বাগানের ক্ষ/তি হওয়ায় এই অর্থ ব/রা/দ্দ দেওয়া হয়।
বনবিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ১ নভেম্বর পরিবেশ বন ও /জ/ল/বায়ু পরিবর্তন মন্ত্র/ণা/ল/য়ের উন্নয়ন খাত থেকে বন অধি/দ/প্তরকে খোর্দ্দ বাউসা গ্রামের আমবাগা/নে/ শা/মু//কখোল পাখির বাসার জন্য আমচাষিদে/র/ ক্ষতিপূ/র/ণ/ হিসে/বে/ এই ব/রা/দ্দ/ দেওয়া হয়েছে।

যে পাঁচ আ/ম/বা/গান মালিক এই ব/রা/দ্দ পাচ্ছেন তারা হলেন- খোর্দ্দ বাউসা গ্রামের মঞ্জুর রহমান, সানার উদ্দিন, সাহাদত হোসেন, শফিকুল ইসলাম ও ফারুক আনোয়ার।


শনিবার সকালে এই আমবাগান পরিদর্শন করে পাখির অবস্থা দেখতে আসেন বন্যপ্রাণী ও প্রকৃতি সংরক্ষণ অঞ্চল ঢাকার বন সংরক্ষক মিহির কুমার দো, রাজশাহী বিভাগীয় বন কর্মকর্তা জিল্লুর রহমান, রাজশাহী সামাজিক বনবিভাগের সহকারী বনসংরক্ষক মেহেদী হাসান, বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র সংরক্ষণ কর্মকর্তা রাহাত হোসেন, ওয়াইল্ড লাইফ রেঞ্জার হেলিম রায়হান ও বন্যপ্রাণী পরিদর্শক জাহাঙ্গীর কবীর। এ সময় তারা বাগান মালিক ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

News Page Below Ad