স/ম্পদের হিসাব বি/ব/রণী দাখিল না করার অভি/যোগে দুদকের করা মা/মলা থেকে খা/লা/স পেয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পো/রে/শনের মেয়র প্রার্থী বিএনপি নেতা ইশরাক হোসেন।
সোমবার ঢাকার ৪ নম্বর বিশেষ জজ আ/দা/লতের বি/চা/রক শেখ নাজমুল আলম এ মা/মলা/র রায় ঘোষ/ণা করেন।

রায়ে বলা হয়, স/ম্প/দের হিসাব বিব/র/ণী দা/খিল/ করার নোটিস যথা/নিয়/মে জা/রি না হওয়ায় এবং রা/ষ্ট্র/পক্ষ অ/ভি/যোগ প্রমাণ করতে ব্য/র্থ হওয়ায় ইশরাককে খা/লা/স দেয়া হলো।

রায় ঘো/ষণার সময় আ/দা/লতে উপস্থিত ছিলেন প্রকৌ/শলী ইশরাক।

রায়ের পর তাৎ’ক্ষ’ণিক প্রতি/ক্রিয়া/য় ইশরাকের অন্যতম আইনজীবী নূরুজ্জামান তপন বলেন, আমরা জানতাম, এমন রা/য়ই আসবে।

মা/ম/লার বি/ব/রণীতে জানা গেছে , ২০০৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর ইশরাক হোসেন ও তার ওপর নির্ভ/র/শীল ব্যক্তিদের স/ম্প/দের বিব/র/ণী দাখিলের নোটিস দেয় দুদক। ওই বছরের ৪ সেপ্টেম্বর দুদকের কন/স্টে/বল তালেব কমি/শ/নের নোটিসটি জা/রি করতে ইশরাকের বাসভব/নে যান।

কিন্তু ইশরাক সেখানে না থাকায় উ/প/স্থিত চারজন সা/ক্ষীর সামনে বাসভবনের নি/চ/তলায় প্রবেশ পথের বাম পাশের দেয়ালে স্কচটে/প দিয়ে ঝু/লিয়ে নোটি/সটি জা/রি করেন। এরপর কমিশ/নের দেয়া সাত কার্য/দি/বসের মধ্যে তিনি সম্পদ বিবর/ণী দা/খি/ল করেননি।

এ ঘটনায় ২০১০ সালের ২৯ আগস্ট রাজধানীর রমনা থা/নায় তার বি/রু/দ্ধে এ মা/ম/লাটি করা হয়। দুদ/কের তৎ/কালীন সহ/কারী পরি/চা/লক সামছুল আলম বাদী হয়ে মা/ম/লাটি করেন।

ত/দ/ন্ত শেষে ২০১৮ সালের ৬ ডিসেম্বর আ/দা/লতে এ মা/ম/লার চার্জশিট দা/খি/ল করা হয়। দু/দ/কের উপ-পরি/চা/লক জাহাঙ্গীর হোসেন আ/দা/লতে এ চা/র্জ/শিট দা/খি/ল করেন।

গত বছরের ৫ মে চা/র্জশি/ট আমলে নিয়ে ইশরাকের বি/রুদ্ধে/ গ্রে/ফ/তারি প/রো/য়ানা জা/রি করেন ঢাকার সি/নি/য়র স্পেশাল জজ কেএম ইমরুল কায়েশ। একই সঙ্গে তিনি মা/ম/লাটি বিচা/রের জন্য ঢাকার চার নম্বর বিশেষ জজ আদা/ল/তে বদলির আদেশ দেন।

এ মা/ম/লায় গত ৯ ডিসেম্বর আত্মস/ম/র্পণ করে জামিন নেন ইশরাক। এ বছরের ১৫ জানুয়ারি এ মা/ম/লায় ইশরাকের বি/চার শুরু হয়।

News Page Below Ad