মাত্র ১৪ বছর বয়সে স্না’তক’ স’’ম্পন্ন করে ভারত’বা’সীকে তা’ক লাগিয়ে দিল তে’লে’ঙ্গানা’র কিশোর অগস্ত্য জয়সওয়াল। সে ভারতের কনি’ষ্ঠ’তম স্নাতক।এমনটাই দা’বি তেলেঙ্গানার ও’য়া’ন্ডার বয়ে’র।
সম্প্রতি ওস’মা’নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক’স্তরের পরী’ক্ষার ফল বেরিয়েছে।তাতেই মেস কমিউনি’কেশন ও জা’র্নালি’জ’মে স্নাতক ডিগ্রি পেয়েছে অগস্ত্য। মাত্র ৯ বছর বয়সে মাধ্যমিক স্তরের পরীক্ষায় পা’স করেছিল সে।১১ বছর বয়সে পাস করেছিল উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের পরীক্ষা।তাতে পেয়েছিল ৬৩ শতাংশ নম্বর।প’ড়া’শোনা’র পাশাপাশি খে’লা’ধুলা’তেও দ’ক্ষ অগস্ত্য।পে’শা’দার টেবিল টেনিস খেলোয়াড় সে।খেলে জাতীয় স্ত’রে।ভা’লো পিয়া’নো’ বাজা’তে’ পারে অগস্ত্য। আবার এইটুকু বয়সেই আ’’ন্ত’র্জাতিক মো’টি’ভেশনাল স্পিকার।স’ম’স্ত দিকেই তার প্র’তি’ভার বি’কা’শ ঘটেছে।

ছেলের প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে অগস্ত্যর বাবা অশ্বিণী কুমার জয়সওয়াল জানান, প্রত্যেক শিশুর মধ্যেই বি’শে’ষ গুণ থাকে। বাবা-মা যদি তাকে সঠিক পথে চালিত করেন,সেই গু’ণে’র বি’কাশ’ ঘটতে সাহায্য করেন, তাহলে প্রত্যেক শিশুর পক্ষেই অ’সা’ধা’রণ কিছু করা সম্ভব।\

অগস্ত্যর মা জানান, খেলার ছলেই সমস্ত কিছু ছেলেকে শি’খি’য়ে’ছেন তারা। ছোটবেলা থেকেই অগস্ত্যের কৌ’তূ’হল প্র’চুর।বা’স্ত’বস’ম্মত ব্যা’খ্যা দিয়ে তার সব প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করেছেন বাবা-মা। প্রত্যেকটা বিষয় অগস্ত্যকে বো’ঝা’র জন্য অ’নু’প্রে’রণা দিয়েছেন।ভাষা র’প্ত করতে শি’খি’য়েছে’ন। বই পড়ার পাশাপাশি বাবা-মায়ের কাছ থেকেই ’স’ম’স্ত শিক্ষা পেয়ে’ছে বলে জানায় অগস্ত্য। মাস কমি’উ’নিকে’শন ও জা’র্না’লিজমে স্না’ত’ক হলেও তার স্ব’প্ন ডাক্তার হওয়ার। তাই এবার এ’ম’বিবিএস ডিগ্রি পেতে চায় সে।

News Page Below Ad